তারিখ

শনিবার, ১৯শে জুন, ২০২১ ইং, সন্ধ্যা ৬:৩৪, ৫ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৯ই জিলক্বদ, ১৪৪২ হিজরী

বি.সময় ডেস্ক–এই রমজানে মসজিদুল আকসাতে ইজরায়েলের গুলিবর্ষণের প্রতিবাদে হামাস নিয়ন্ত্রণিত গাজা থেকে ইজরায়েলের উপর একের পর এক রকেট হামলা করা হচ্ছে।
কিন্তু হামাস এত রকেট কিভাবে বানাচ্ছে?
হামাস নিয়ন্ত্রণিত গাজা আজ এক যুগেরও বেশি সময় ধরে ইজরায়েল কর্তৃক স্থল ও সমুদ্রপথে অবরুদ্ধ। মিসরের সাথে গাজার যৎসামান্য সীমানা থাকলেও মিসরীয় শাসকগোষ্ঠী সেটিও ব্লক করে রেখেছে।
ইজরায়েলকে প্রতিরোধ করতে হামাসের ব্যাপক অস্ত্র ও মিলিটারি সরঞ্জাম দরকার। কিন্তু অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় অস্ত্র ও মিসাইল আমদানি করা কষ্ট সাধ্য নয়, বরং অসম্ভবই এক প্রকার। অর্থাৎ বহির্বিশ্ব থেকে হামাসের সামরিক সাহায্য লাভের কোনো সুযোগ নাই।
এত বিপুল সংখ্যক রকেট হামাসকে বানাতে হচ্ছে তার অভ্যন্তরীণ শক্তি দিয়ে। কিন্তু এত রকেট বানানোর কাঁচামালের যোগান কোথা থেকে আসছে?
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় কিছু যুদ্ধ জাহাজ গাজা উপত্যকার সমুদ্র উপকূলে ডুবে যায়। ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের ডুবুরি দল সম্প্রতি এই জাহাজগুলোর সন্ধান পায়। এই জাহাজ সমূহের বিভিন্ন সরঞ্জাম এখনো বহাল তবিয়তে অক্ষত রয়েছে। হামাসের ডুবুরি দল প্রতিনিয়ত জাহাজগুলো থেকে এসব সরঞ্জাম উদ্ধার করে নিয়ে আনেন।
জাহাজ থেকে আনা এসব সরঞ্জাম বিভিন্ন অস্ত্রের কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহার করা যায়। পাশাপাশি জাহাজ থেকে প্রাপ্ত হালকা ঝং ধরা অস্ত্র পরবর্তীতে হামাসের কারখানায় নেওয়া হয়।হামাসের ইন্জিনিয়ারিং টিম এই কাঁচামালগুলো থেকেই তৈরি করে নানা ধরনের অস্ত্র এবং জং ধরা অস্ত্রগুলোকে করে তোলে অত্যাধুনিক।
ইদানীংকালে হামাস প্রতিনিয়ত তাদের অস্ত্রের মজুদ বাড়াচ্ছে এবং ইজরায়েলের হামলার পাল্টা জবাব দিতে সক্ষম হচ্ছে। আর এর পিছনে সবচেয়ে বেশি অবদান এই ডুবন্ত জাহাজগুলোরই।
তবে শুধুমাত্র ধ্বংসপ্রাপ্ত জাহাজ থেকে যে হামাস অস্ত্র তৈরি করছে তা নয়। ইজরায়েলের তৈরি করা পাইপলাইন ও হামাসের অস্ত্র তৈরির কাঁচামালে যোগানদাতা!
গাজা সিটির মাটির নিচ দিয়ে ইজরায়েল কিছু পানির লাইন স্থাপন করেছিলো। মূলত ইজরায়েলের অভ্যন্তরীণ পানির চাহিদা মেটাতে গাজা হতে পানি চুরি করার জন্য এসব লাইন বসানো হয়। যদিও একটাসময় পর ইজরায়েলের এই লাইনটি হামাসের নজরে আছে। নজরে আসার পরপরই হামাস লাইনটির কার্যকারিতা বন্ধ করে দেয়।
পাশাপাশি এখন লাইনটির ব্যবহৃত যন্ত্রাংশ থেকে হামাস বিভিন্ন অস্ত্রের কাঁচামাল পাচ্ছে।
অর্থাৎ ইজরায়েলের নাগরিকদের সুরক্ষার জন্য তৈরি করার পানির লাইন বর্তমানে ইজরায়েলে হামলা করা রকেটের কাঁচামাল হিসেবে ইউজ হচ্ছে!
তাই বলা যায়, হক ও ন্যায়ের পথে থাকলে আল্লাহর সাহায্য আকাশ ভেদ করে, পানি ফুঁড়ে, মাটির নিচ দিয়ে চলে আসবেই ইনশাআল্লাহ।
(Visited 1 times, 1 visits today)

বার্তা সম্পাদক

আশিকুর রহমান শ্রাবণ

সম্পাদক ও প্রকাশক

কাজী জাহাঙ্গীর আলম সরকার।

ই-মেইল: jahangirbhaluka@gmail.com
নিউজ: bsomoy71@gmail.com

মোবাইল: ০১৭১৬৯০৭৯৮৪

%d bloggers like this: