তারিখ

বুধবার, ২৭শে মে, ২০২০ ইং, রাত ৪:৩২, ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩রা শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী

 

রেজাউল করিম রেজা জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃ
করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ ও ঈদকে সামনে রেখে ২৫শ, প্রতিবন্ধী, বিধবা, অসহায় ও প্রবীনদের মাঝে জয়পুরহাটের বেসরকারি সংস্থা জাকস ফাউন্ডেশন প্রায় ১৩ লক্ষ টাকা বিতরণ করছে। এর ধারাবাহিকতায় বুধবার দুপুরে সদর উপজেলার জাকস ফাউন্ডেশন ধলাহার শাখা অফিসের সামনে ১৫শ জনকে ৫শ টাকা করে বিতরণ করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জাকস ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক নূরুল আমিন, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ফয়েজ উদ্দিন, জয়পুরহাট প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক খ. ম. আব্দুর রহমান রনি, জাকস ফাউন্ডেশনের যুগ্ম পরিচালক রফিকুল ইসলাম, সিনিয়র সহকারী পরিচালক খোরশেদ আলম, সহকারী পরিচালক রুহুল আমিনসহ ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা কর্মচারীরা।

এম আর এর নিদের্শনায় পি কে এস এফ সহযোগীতার প্রতিবন্ধী, অসহায়, বিধবা, প্রবীনদের মাঝে ৫শ টাকা দেওয়ার কর্মসূচী বাস্তবায়ন করছে জয়পুরহাটের জাকস ফাউন্ডেশন।

উল্লেখ্য যে, ১৯৯৩ সালে জাকস ফাউন্ডেশন জয়পুরহাট সদর উপজেলার ধলাহার ইউনিয়নে যাত্রা শুরু করে হাটি হাটি পা পা করে জাকস ফাউন্ডেশন জয়পুরহাট জেলার গুন্ডি পেরিয়ে ৫টি জেলায় ৩০টি উপজেলায় প্রায় ৭শতাধিক এর উর্ধে কর্মকর্তা কর্মচারীকে নিয়ে ৬২টি শাখা অফিসে ১লক্ষ সদস্যকে নিয়ে জাকস ফাউন্ডেশন, সমাজে পিছিয়ে থাকা জনগষ্ঠিকে আত্ব নির্ভরশীল করার লক্ষ্যে উন্নয়ন মূলক কাজ করছে।

এই সংস্থায় বর্তমানে মাইক্রো ক্রেডিট রেগুলেটরি অথরেটি (এম আর এ) নিদের্শনায় পি. কে. এস. এফ. এর সহযোগীতায় ও জাকস ফাউন্ডেশনের নিজস্ব তহবিলে ১২টি কর্মসূচী চলমান আছে। কর্মসূচীগুলোর মধ্যে মাইক্রো ক্রেডিট, সবার জন্য উন্নত স্যানিটেশন ব্যবস্থা, স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সেবা, প্রান্তিক চাষীদের কারিগরি সহয়তা, মৌসুম ভিত্তিক ফসল উৎপাদনের ঋণ সহয়তা, ভিক্ষুক পূর্ণবাসন, শিক্ষা কেন্দ্রের মাধ্যমে শিক্ষা সহয়তা, কৈশর কর্মসূচী, সমৃদ্ধি কর্মসূচীসহ মোট ১২টি কার্যক্রম ছাড়াও হঠাৎ করে বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস শুরুর পর থেকেই কয়েকটি স্তরে কাজ করা হচ্ছে।

করোনা শুরু সময় প্রথমে লিফলেট, মাইকিংক, মাক্স, সাবান, হেন্ড স্যানিটেশন, হাত ধোওয়া কর্মসূচী মাধ্যমে সচেতনতা বাড়ানোসহ সরকারের নিদের্শনা অনুয়ায়ি ক্ষুদ্র ঋণের আদায় স্থগিত করা, জেলা প্রসাশন ও উপজেলা প্রসাশনের ত্রাণ তহবিলে অর্থ সহযোগীতা, উপজেলা পরিষদগুলোতে জীবানু নাশক গেট টানেল, পাশ্ববর্তী কয়েকটি জেলার উপজেলা প্রশাসনকে ত্রাণ তহবিলে অর্থ সহযোগীতা দেওয়া হয়েছে, প্রতিবন্ধী, বিধবা, অসহায় ও প্রবীনদের মাঝে ৫শ টাকা করে ১৩লক্ষ টাকা নগত অর্থ দেওয়া হয়েছে। করোনা পরিস্থিতি যতদিন চলবে ততদিনই নগদ টাকা দেওয়া কর্মসূচী অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন জাকস ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তারা।

এব্যাপারে জয়পুরহাট জাকস ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক নূরুল আমিন বলেন, করোনা শুরুর পর থেকে আমরা কয়েকটি স্তরে কাজ করছি। প্রথমে লিফলেট, মাইকিংক, মাক্স, সাবান, হেন্ড স্যানিটেশন, হাত ধোওয়া কর্মসূচী মাধ্যমে নানা রকম সচেতনতা বাড়ানোসহ সরকারের নিদের্শনা অনুয়ায়ি ক্ষুদ্র ঋণের আদায় স্থগিত করা, জেলা প্রসাশন ও উপজেলা প্রসাশনের ত্রাণ তহবিলে অর্থ সহযোগীতা, উপজেলা পরিষদগুলোতে জীবানু নাশক গেট টানেল, পাশ্ববর্তী কয়েকটি জেলার উপজেলা প্রশাসনকে ত্রাণ তহবিলে অর্থ সহযোগীতা দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে প্রতিবন্ধী, বিধবা, অসহায় ও প্রবীনদের মাঝে নগত অর্থ দেওয়া হচ্ছে এবং যতদিন করোনা পরিস্থিতি থাকবে ততদিন এসব কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। এছাড়াও দাতা সংস্থাদের সাথে কথা হচ্ছে তাদের সহযোগীতা পেলে এই করোনা পরিস্থিতিতে সহায়তা আরও জোরদার ভাবে করা যাবে।

 

(Visited 1 times, 1 visits today)

সম্পাদক ও প্রকাশক

কাজী জাহাঙ্গীর আলম সরকার।

ই-মেইল: jahangirbhaluka@gmail.com
নিউজ: bsomoy71@gmail.com

মোবাইল: ০১৭১৬৯০৭৯৮৪

%d bloggers like this: