বিশেষ প্রতিনিধি- ময়মনসিংহের ভালুকা পৌর সদরে বিভিন্ন দোকানে সরবরাহ করা জুস গুলো মানুষের মরন ফাদের পরিনত হয়েছে । উল্লেখ্য রোববার বিকেলে একজন ভালুকা পৌর সদরের সৈকত ষ্টোর মেজর ভিটা এলাকার দোকান থেকে একটি ২৫০মিলি জুস কিনলে জুসের বোতলে কালো দানাদার অস্বাস্থ্যকর  দেখা যায় । পরে ওই ক্রেতা প্রেসক্লাব সভাপতিকে জানান । এ বিষয়ে দোকান মালিক জসীম উদ্দিন সরকারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন মেয়াদ এবং উৎপাদন ০৮/০৯/১৯#ম০১ এ মেয়াদ শেষের তারিখ ০২/০৬/২০২০। সচেতন মহল মনে করছে প্রানের বেজাল নিম্ম মানের পন্য তৈরি করে প্রান নামক কোম্পানি প্রতিদিন কোটি কোটি টাকা হায়িয়ে নিচ্ছে । এসকল ভেজাল জুস পান করে শিশুরা  অসুস্থ হয়ে পরছে, জুস পান করে শিশু দের ডায়রিয়া আমাশা সহ নানা বিদ জোটিল রোগে আক্রাত হচ্ছে ।

“মুক্তিযুদ্ধের চেতনায়’ ভালুকা প্রেসক্লাব সভাপতি এ.বি.এম জিয়া উদ্দিন বাসার জানান, আমি ওই বিষয়টি স্যানেটারী পরিদর্শক মিজানুর রহমানকে দেখতে বলি তিনি বেপারটি এরিয়ে যান.পরে উপজেলা নির্বহী অফিসারের মাধ্যমে সহকারী কমিশনার (ভুমি) রোমেন শর্মা সরেজমিনে গিয়ে ২টি  ম্যাংগো ফুট ড্রিংক নামিয় প্রাণ ফোটো জুস উদ্ধার করে নিয়ে যায় ।

 

এ ব্যাপারে রোমেন শর্মা জানান, প্রানের স্থানীয় ডিপুতে তল্লাশী করে এরকম আর কোন জুস পাইনি দোকান মালিক বলছে তাদের কাছ থেকে কিনেছে তাই জুস পরিক্ষা করার জন্য বিএসটিআইয়ে পাঠিয়েছি রিপোর্ট আসলে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে ।

এলাকার বাসি দাবি অবিলম্বে প্রান কোম্পানী বন্দ সহ আইনানুগ ব্যবম্ভা গ্রহণ করা হউক ।

(Visited 1 times, 1 visits today)

সম্পাদক ও প্রকাশক

কাজী জাহাঙ্গীর আলম সরকার।

ই-মেইল: jahangirbhaluka@gmail.com
নিউজ: bsomoy71@gmail.com

মোবাইল: ০১৭১৬৯০৭৯৮৪

%d bloggers like this: