পঞ্চগড় প্রতিনিধি –দেশের সর্ব উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে জাকিয়ে বসেছে শীত। এরই মধ্যে বেশ কয়েকদিন থেকে দেশের সর্বনিন্ম তাপমাত্রা বিরাজ করছে এই জেলায় । গত ৪ ডিসেম্বর থেকে ৮ থেকে ১০ ডিগ্রী সেলসিয়াসের মধ্যে উঠানামা করছে তাপমাত্রা। দিনে প্রচন্ড রোদ আর রাতে হালকা কুয়াশার সাথে সাথে বইছে ঠা-া বাতাস। আবহাওয়ার এই পরিবর্তনে প্রভাব পড়েছে স্থানীয় জন মানুষের উপরেও।
তেতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের জানিয়েছেন আজ সর্বনিন্ম তামাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ডিরসম্বরের শেষের দিকে তাপমাত্রা আরও কমতে পারে। ২০১৮ সালের ৫ থেকে ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত একই তাপমাত্রা ছিলো। এই তাপমাত্রা ক্রমশ: আরও কমতে থাকবে। বাড়বে ঠান্ডার তীব্রতা। কারণ বঙ্গোপসাগর থেকে মৌসুমী বায়ু আসা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বৃষ্টিপাত হচ্ছেনা। এই সুযোগে হিমালয় থেকে আসছে উত্তর পশ্চিম মুখি হিমবায়ু। এই হিমাবায়ুর প্রভাবে পড়েছে শীত। হিমালয়ের খুব কাছে ঢালা সমতল ভূমিতে অবস্থান হওয়ায় পঞ্চগড়কে বলা হয় হিমালয় কন্যা। এই জেলার মানুষদেরকে প্রতিবছর তাই শীতের নানা প্রভাবের মুখোমুখি হতে হয়। শীতের তীব্রতা যতো বাড়ছে ছিন্নমূল ও দরীদ্র মানুষদের বাড়ছে দুর্ভোগ। পর্যাপ্ত গরম কাপড় ছাড়া পঞ্চগড়ে শীত কাটানো সম্ভব নয়। তাই গরম কাপড়ের দোকানগুলোতে ভীর বাড়লেও দরীদ্র মানুষের কপালে পড়েছে দু:চিন্তার ভাঁজ। একখন্ড কাপড় আর সূর্যের আলোর আশায় রাত কাটে তাদের। তাই তারা চান গরম কাপড়। দরীদ্র মানুষেরা শীত মোকাবেলায় সরকারের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

শীত মোকাবেলা করার জন্য প্রতিবারের মতো এবারও যথেষ্ট প্রস্তুতি রয়েছে বলে জানালেন জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন ।

(Visited 1 times, 1 visits today)

সম্পাদক ও প্রকাশক

কাজী জাহাঙ্গীর আলম সরকার।

ই-মেইল: jahangirbhaluka@gmail.com
নিউজ: bsomoy71@gmail.com

মোবাইল: ০১৭১৬৯০৭৯৮৪

%d bloggers like this: