ইসলামী বিশ্বিবদ্যালয় প্রতিনিধিসৃজনী প্রকাশনীর সত্ত্বাধিকারী মশিউর রহমানের বিরুদ্ধে ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের (ইবি) বাংলা বিভাগেরর অধ্যাপক ড. মনজুর রহমান মামলা দায়ের করেছেন। ষড়যন্ত্রমূলকভাবে অন্যের লেখা বই ওই শিক্ষকের নামে প্রকাশ করায় তিনি এ মামলা করেছেন। শানিবার বিশ^বিদ্যালয় প্রেসকর্ণারে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন ড. মনজুর রহমান।জানা যায়, সৃজনী প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত ‘দ্য গ্রেট মিথোলোজি’ বইটি প্রকাশ হয়। এতে লেখক হিসেবে বাংলা বিভাগেরর অধ্যাপক ড. মনজুর রহমানের নাম ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়াও এই বইটির সঙ্গে উনেশশো ষাট সালে তুলি-কলম থেকে প্রকাশিত সুধাংশুরঞ্জন ঘোষের ‘গ্রীক পুরান কথা’ বইয়ের মিল রয়েছে। বইটি প্রকাশ হলে লেখক সমাজে ব্যাপক সমালোচনা হয়।সংবাদ সম্মেলনে অধ্যাপক ড. মনজুর রহমান বলেন, আমার নামে সম্প্রতি সৃজনী প্রকাশনী থেকে ‘দ্য গ্রেট মিথোলোজি’ বইটি প্রকাশিত হয়। যার লেখক আমি নই। এই বিষয়ে আমি তাদের কাছে কোন পান্ডুলিপি জমা দেয়নি। কে বা কারা আমার নাম ব্যবহার করে প্রকাশকের সঙ্গে ঐক্যতায় ষড়যন্ত্রমূলকভাবে প্রকাশ করেছে।তিনি আরো বলেন, চলতি মাসে কলকতায় বই মেলায় এই বইটি প্রকাশিত হওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আমার বিষয়ে দেশে-বিদেশে সমালোচনা শুরু হয়। পরবর্তীতে আমি গত ১৪ নভেম্বর সৃজনী প্রকাশনীর সত্ত্বাধিকারী মোঃ মশিউর রহমানের নামে ঝিনাইদহ সদরের বিজ্ঞ সহকারী জজ আদালতে আইন ও ইক্যুইটি মতে মামলা করেছি। একইসঙ্গে প্রকাশনী হতে প্রকাশিত সকল বই পুড়িয়ে দেওয়ার জন্য তাদেরকে জানিয়েছি।এ ঘটনায় গত ১৪ নভেম্বর ড. মনজুর রহমান ঝিনাইদহ সহকারী জজ আদালতে প্রকাশকের বিরুদ্ধে মামলা করেন। প্রকাশক ষড়যন্ত্রমূলকভাবে তাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য এ কাজ করেছেন বলে মামলার এজহারে ড. মনজুর রহমান উল্লেখ করেন।এ বিষয়ে সৃজনী প্রকাশনীর সত্ত্বাধিকারী মশিউর রহমান বলেন, বইটি প্রকাশের সময় আমি ইন্ডিয়ায় অবস্থান করায় লেখকের নামের বিষয়টি ভূল বসত হয়েছে। যে কোন কারণে বইটি অন্য একটি বইয়ের সঙ্গে মিলে গেছে। বইটি বাজারে যাচ্ছে না। আমি ইন্ডিয়া থেকে আসার পরে বইটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

(Visited 1 times, 1 visits today)

সম্পাদক ও প্রকাশক

কাজী জাহাঙ্গীর আলম সরকার।

ই-মেইল: jahangirbhaluka@gmail.com
নিউজ: bsomoy71@gmail.com

মোবাইল: ০১৭১৬৯০৭৯৮৪

%d bloggers like this: