কালকিনি (মাদারীপুর) থেকে, মোঃ জাফরুল হাসান –মাদারীপুরের কালকিনিতে আড়িয়াল খাঁ নদীর অব্যাহত ভাঙনে উপজেলা সাহেবরামপুর এলাকার লঞ্চঘাটে সরকারি বিদ্যালয়, কমিউনিটি ক্লিনিক, মসজিদ ও বাজারসহ ওই গ্রামের কয়েক শত বসতবাড়ি রক্ষা ও দ্রুত বাঁধ নির্মাণ এবং হাজারো কোটি টাকার সম্পদ রক্ষার দাবিতে মানববন্ধন করেছে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও স্থানীয় ভিটে-বাড়ী হারানো কয়েক শত মানুষ। আজ মঙ্গলবার সকালে নদীর পাড়ে ঘন্টা ব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে।
ভূক্তভোগী পরিবার ও সরেজমিন সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার সাহেবরামপুর ও সি ডি খাঁন ইউনিয়নের সাথে রয়েছে আড়িয়াল খাঁ নদী। এ নদীর অব্যাহত ভাঙনের কবলে পরে অসংখ্য বাড়িঘর ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নদী গর্ভে বিলিন হয়ে গেছে। সেখানে বর্তমানে ভাঙ্গনের কবলে রয়েছে ৭১নং স্বস্থাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সাহেবরামপুর কমিউনিটি ক্লিনিক, কেন্দ্রেীয় মসজিদ, ঈদগা ও একটি বাজারসহ অসংখ্য বসতবাড়ি এবং বিস্তীর্ণ এলাকা। যার ফলে সিডি খানের অনেক বসতভিটা, কৃষি জমি, বাজার, সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন স্থাপনাসহ গোটা জনপদ হারানোর ভয়ে চরম আতঙ্কে রয়েছেন। এতে করে ওই দুই ইউনিয়নের প্রায় বিশ হাজার মানুষ এখন আতংকে মাঝে রয়েছেন। অবিলম্বে নদী ভাঙন রোধ করা না হলে ভৌগোলিক পরিবতর্ন পরিবেশ বিপর্যয়ের আশংকা রয়েছে।আড়িয়াল খাঁ নদীর ভয়াবহ ভাঙন থেকে ওই এলাকাকে রক্ষার দাবি তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন,৭১নং স্বস্থাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ শাহাদাত হোসেন, স্থানীয় ব্যবসায়ী মোঃ আলী আকবর বেপারী, রমজান ভূইয়া, বাবুল বেপারী, আরিফ ভূইয়া, বাচ্চু সরদার ও বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি আবদুর রহিম প্রমুখ। এ সময় বক্তারা বলেন, গত ১০ বছর ধরে আড়িয়াল খাঁ নদীর অব্যাহত ভাঙনে সাহেবরামপুর ও সিডি খাঁন ইউনিয়নের ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে। নদী গর্ভে বিলিন হয়েগেছে প্রায় ১০ হাজার ঘরবাড়িসহ কয়েক হাজার কোটি টাকার সরকারি-বেসরকারী স্থাপনা। একই ভাবে ছোট বড় ১০টি বড় হাট বাজার, ৫টি স্কুল, কলেজ ও মাদরাসা, ১৫ কিলোমিটার কাঁচা-পাকা রাস্তা, ১০ কিলোমিটার বেড়ীবাঁধ এবং ৫ হাজার একর ফসলি জমি।দ্রুত নদী ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে স্রোতের চ্যানেল পরিবর্তন এবং ঝুঁকিপূর্ণ বিভিন্ন স্থানে জরুরী ভিত্তিতে জিও ব্যাগ ডাম্পিং করে দুই ইউনিয়ন রক্ষা করার পাশপাশি স্থায়ী বাঁধের দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার দাবি তাদের। এসময় মানববন্ধনে অংশ গ্রহনকারীরা অনতি বিলম্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একান্ত হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আমিনুল ইসলাম বলেন, ওই দুই ইউনিয়নের কয়েক জায়গায় জিও ব্যাগ ডাম্পিং করে ভাঙ্গন রোধের চেষ্ঠা চলছে।

(Visited 1 times, 1 visits today)

সম্পাদক ও প্রকাশক

কাজী জাহাঙ্গীর আলম সরকার।

ই-মেইল: jahangirbhaluka@gmail.com
নিউজ: bsomoy71@gmail.com

মোবাইল: ০১৭১৬৯০৭৯৮৪

%d bloggers like this: