জেলা প্রতিনিধি: ফেনী,-ফেনীর সোনাগাজী মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির শ্লীলতাহানির ঘটনার মামলার পর ফেনীর অতিরিক্ত জেলা মেজিষ্ট্রেট ও সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়ল ফাজিল মাদরাসার সাবেক সভাপতি পিকেএম এনামুল করিমের ভূমিকা বিষয়ে তদন্ত করতে বুধবার বিকেলে সোনাগাজীতে সরেজমিনে তদন্ত করতে আসেন চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) মোঃ হাবিবুর রহমান। এ সময় তিনি নুসরাতের পিতা একেএম মূছা, মাতা শিরিন আক্তার ও বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমানের লিখিত জবানবন্ধী গ্রহন করেন। এরপর বিকাল সাড়ে পাঁচটায় তিনি সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসা পরিদর্শন শেষে মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোঃ হোছাইনসহ শিক্ষকদের সাথে কথা বলেন।
নুসরাতের মা শিরিন আক্তার ও ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান জানান, গত ৪ এপ্রিল নুসরাতের শ্লীলতাহানী মামলার পর নুসরাতকে সাথে নিয়ে ফেনীর অতিরিক্ত জেলা মেজিষ্ট্রেট ও সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়ল ফাজিল মাদরাসার সাবেক সভাপতি পিকেএম এনামুল করিমের নিকট গিয়ে নিরাপত্তাসহ বিভিন্ন বিষয়ে সহযোগীতা চাইলে তিনি আমাদের সাথে দূব্যবহার করে বলেন এখন কেন এসেছেন, মামলা করার আগে কেন আসেননি-অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলাহ জামিন পাওয়ার পর আপনাদের বিরুদ্ধে উল্টো মানহানির মামলা করবে। বাড়া বাড়ি করবেননা সব কিছু হজম করে ফেলেন এ বিষয় গুলো তিনি তদন্ত কমিটিকে বলেছেন।
গত ১৫ জুলাই বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ নুসরাত হত্যা মামলায় সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার গভর্নিংবডির সভাপতি পিকিএম এনামুল করিমের বিরুদ্ধে তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।
একইসঙ্গে হত্যাকাণ্ডের পরে তদন্ত এবং যথাযথ ব্যবস্থা নিতে এনামুল করিমের নিষ্ক্রিয়তার কারণ জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত।
গত ১৫ জুলাই পরবর্তী চার সপ্তাহের মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, জনপ্রশাসন, শিক্ষা সচিব, আইজিপি, ফেনীর জেলা প্রশাসক, ফেনীর পুলিশ সুপার, সোনাগাজী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, একটি দৈনিক পত্রিকার সম্পাদককে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।
গত ২০ এপ্রিল নুসরাত হত্যা এবং অধ্যক্ষের অনিয়ম-দুর্নীতি ও শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানির বিষয়ে জেনেও ব্যবস্থা না নেওয়ায় সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার পরিচালনা পর্ষদ বাতিল করে পাঁচ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি গঠনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
উল্লেখ্য গত ২৭ মার্চ সোনাগাজী মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির শ্লীলতা হানির ঘটনার পর তার মা শিরিন আক্তার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতা হানির মামলা দায়ের করলে আদালত সিরাজকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন এবং ৪ এপ্রিল নিরাপত্তাসহ বিভিন্ন বিষয়ে সহযোগীতার জন্য নুসরাতসহ তার পরিবারের সদস্যরা ফেনীর অতিরিক্ত জেলা মেজিষ্ট্রেট ও সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার সাবেক সভাপতি পিকেএম এনামুল করিমের নিকট গিতে দূব্যাবহারের শিকার হন।
গত ৬ এপ্রিল ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসায় আলিম পরীক্ষা কেন্দ্রে গেলে নুসরাতকে ছাদে ডেকে নিয়ে সিরাজ উদ্দৌলার সহযোগীরা নুসরাতের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১০ এপ্রিল মারা যান তিনি।

(Visited 1 times, 1 visits today)

সম্পাদক ও প্রকাশক

কাজী জাহাঙ্গীর আলম সরকার।

ই-মেইল: jahangirbhaluka@gmail.com
নিউজ: bsomoy71@gmail.com

মোবাইল: ০১৭১৬৯০৭৯৮৪

%d bloggers like this: