মাসুদ রানা পলক, ঠাকুরগাঁওঃ চলতি বছরে সময় মত তাদের পাওনা টাকা পেয়ে চুক্তিবদ্ধ গম বীজ চাষিরা বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনকে (বিএডিসি) ধন্যবাদ জানালেও গত বছরের তুলনাই এবার কেজিতে ৩ টাকা কম পাওয়ায় পুনরায় মূল্য নির্ধারণের দাবী জানিয়েছেন বিএডিসি‘র কাছে।বৃহস্পতিবার সকালে বিএডিসি‘র চুক্তিবদ্ধ গম বীজ চাষিদের পাওনা টাকার চেক তুলে দেন বিএডিসির ঠাকুরগাঁও কন্ট্রাক গ্রোয়াস জোনের উপ-পরিচালক আওলাদ হাসান সিদ্দিকী। এছাড়াও চুক্তিবদ্ধ চাষিদের পাওনা টাকা চেকের মাধ্যমে প্রদান করেছেন, অধিক বীজ উৎপাদন জোন ও আপৎ কালীন বীজ মজুত উৎপাদন জোন।এবার ঠাকুরগাঁও জেলায় ৩ টি বীজ উৎপাদন জোনে ১৮শ গম বীজ চাষি বিএডিসির থেকে বীজগম নিয়ে ৫ হাজার হেক্টর জমিতে আবাদ করে। এতে উৎপাদন হয় প্রায় ২০ হাজার মেট্রিকটন। এর মধ্যে ৮ হাজার ১শ মেট্রিকটন গম বীজ ক্রয় করেছে বিএডিসি । আর সারাদেশে ১২ হাজার মেট্রিকটন গম বীজ ক্রয় করেছে বিএডিসি।কৃষি বিভাগ সূত্রে জানাযায়, জেলায় এবার ৫০ হাজার ২শ ৩০ হেক্টর জমিতে গমের আবাদ হয়েছিল। আর উৎপাদন হয়েছে প্রায় ২ লাখ ১ হাজার মেট্রিকটন। আর খাদ্য অধিদপ্তর এবার ২৮ টাকা দরে জেলায় ১৭ হাজার ৯শ ১৫ মেট্রিকটন গম ক্রয় করেছে।বিএডিসি‘র আপৎ কালীন বীজ মজুত উৎপাদন জোনের চুক্তিবদ্ধ চাষি নুর ইসলাম বলেন, গতবছর বিএডিসির চুক্তিবদ্ধ আলু চাষীদের কথা চিন্তা করে পুরনায় আলুর দর নিধার্রণ করেছিলেন। আশা করি এবারও গম চাষিদের লোকশানের কথা চিন্তা করে গম বীজের দাম পূনরায় নির্ধারণ করবেন বিএডিসি।বিএডিসি‘র অধিক বীজ উৎপাদন জোনের চুক্তিবদ্ধ চাষি কুদ্দুস আলী বলেন, আমরা ভেবে ছিলাম বাজারে গত বছরের চেয়ে এবার গমের দাম বেশি তাই বিএডিসিও গম বীজের দাম বেশি দিবেন। কিন্তু শেষে তারা গত বছরে চেয়ে কেজিতে ৩ টাকা কমিয়ে দিয়েছে। বীজের টাকা পেয়েছি তবে বিএডিসির কাছে আবেদন করছি তারা যেন পুনরায় দর নির্ধারণ করেন।বিএডিসি‘র কন্ট্রাক গ্রোয়াস জোনের চুক্তিবদ্ধ চাষি ও ঠাকুরগাঁও বিএডিসি চুক্তিবদ্ধ চাষি ফোরামের সভাপতি কুতুব উদ্দিন বলেন, চাষিরা বিএডিসিকে সম্মান জানিয়ে কম দরে চেক গ্রহণ করেছি। তরে আশা করি চাষিদের কথা চিন্তা করে বিএডিসি পুনরায় দর নির্ধারণ করে আবারও চেক প্রদান করবেন। কারণ বিএডিসির চাষিরা আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হলে মানসম্মত বীজ উৎপাদনে ব্যর্থ হবেন বিএডিসি। আর মানসম্মত বীজ না পেলে সাধারণ চাষিদের উৎপাদন করে যাবে।উল্লেখ্য বিএডিসি কর্তৃপক্ষ গম বীজ ক্রয়ের মূল্য প্রত্যায়িত ও মানঘোষিত বীজ ৩২ টাকা নিধার্রণ করেছেন। আর গত বছর গম বীজ ক্রয়ের মূল্য ছিল প্রত্যায়িত ও মানঘোষিত বীজ ৩৫ টাকা।
(Visited 1 times, 1 visits today)

সম্পাদক ও প্রকাশক

কাজী জাহাঙ্গীর আলম সরকার।

ই-মেইল: jahangirbhaluka@gmail.com
নিউজ: bsomoy71@gmail.com

মোবাইল: ০১৭১৬৯০৭৯৮৪

%d bloggers like this: