নবীগঞ্জ প্রতিনিধি – হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার পল্লীতে ব্যক্তিগত বিরোধের জের ধরে ব্যক্তি নামে রেকর্ডিয় ভূমি গো-চারণ ভূমি’র দোহাই দিয়ে জবর দখলের পাঁয়তারা হাসিল করতে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানীর অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার বিবরণে জানাযায়, নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের জেএল নং ১৭, দাগ নং এস.এ ৯২ হাল ৯৩, এবং আর এস দাগ নং ১৬২, ১১৫, ১০১ এর আওতায় মোট ৩ শ ৮৭ শতাংশ ভূমি ওই ইউনিয়নের বানিউন গ্রামের ফিরোজ মিয়া, সুলেমান মিয়া, মৌলানা হাবিবুর রহমান দলিলমুলে মালিক এবং তাদের নামে চুড়ান্ত পর্চা হয়েছে। উল্লেখিত ভূমির কিছু অংশে দ্বিতল বিল্ডিং বসতঘর এবং কিছু অংশে গাছগাছালি লাগানো রয়েছে। কিন্তু ওই গ্রামের সাদিক উল্লাহর পুত্র গোলাম হোসেন, রেজা উল্লাহর পুত্র ইলাক উদ্দিন, বদরুল আলম, ইমান উদ্দিনের পুত্র রাজ উদ্দিন, আব্দুল বারিকের পুত্র তইর উদ্দিন, দিলাওর আলীর পুত্র শাহ কচির আলী গংরা নিজেদের স্বার্থ হাসিল করতে গো-চারণ ভূমির দোহাই দিয়ে ওই ভুমি জোরপূর্বক দখল করতে আপ্রান চেষ্টা চালাচ্ছে। ভূমি দখলে তারা সব ধরনের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে উল্লেখিত ব্যক্তিদের ভূমি আত্মসাত ও হয়রানী করার জন্য হবিগঞ্জ সহকারী জজ আদালতে ৮৬/১৮ইং মামলা দায়ের করে। মামলা দায়েরের পর ওই গ্রামের সাধারণ মানুষের মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। এ নিয়ে যেকোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকার করছেন এলাকার সচেতন মহল। বিষয়টি সরেজমিন পরিদর্শনের ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, উল্লেখিত ভূমির কিছু অংশে দ্বিতল ভবন এবং কিছু অংশে বিভিন্ন প্রজাতির গাছ লাগানো রয়েছে। এছাড়া গ্রামের দক্ষিণ পশ্চিম দিকে গবাদি পশু পালন ও গো-চারনের জন্য বড় রকমের একটা চারণ ভূমি রয়েছে। এতে ধারনা করা হচ্ছে ওই এলাকার একটি কু-চক্রি মহল ব্যক্তিগত বিরোধকে পুঁজি করে ভূমি দখলের অপচেষ্টা হাসিল করতে হাতিয়ার হিসাবে বানিউন গ্রামের ফিরোজ মিয়া, সুলেমান মিয়া, মৌলানা হাবিবুর রহমান গংদের বিরুদ্ধে হবিগঞ্জ কোর্টে একটি হয়রানীমুলক মামলা দায়ের করেছে। এব্যাপারে ভুক্তভোগী লোকজন সংশ্লিষ্ট আইনের সহযোগীতা কামনা করছেন।

(Visited 1 times, 1 visits today)

সম্পাদক ও প্রকাশক

কাজী জাহাঙ্গীর আলম সরকার।

ই-মেইল: jahangirbhaluka@gmail.com
নিউজ: bsomoy71@gmail.com

মোবাইল: ০১৭১৬৯০৭৯৮৪

%d bloggers like this: