মোঃ শরিফুল ইসলাম (মানিকগঞ্জ) : জননেত্রী শেখ হাসিনার মধ্যমায়ের দেশ গঠনের অংশ হিসেবে সারা দেশে ভিয়েতনাম থেকে  সংগৃহীত উচ্চফলনশীল উন্নত ও খাটো (ওপি)জাতের নারিকেল চাষ পদ্ধতি হাতে নেয়া হয়েছে। কৃষি মন্ত্রণালয় সূত্রে জানায়, মানবদেহের পুষ্টির চাহিদা পূরণ, মেধার বিকাশ ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে ফলের গুরুত্ব অপরিসীম। পুষ্টিবিদদের মতে, দৈনিক মাথাপিছু ২০০ গ্রাম ফল খাওয়া উচিত। তবে বর্তমানে দেশে যে পরিমাণ ফল উৎপাদন হয় তা চাহিদার তুলনায় মাত্র ৪০ শতাংশ। প্রতিবছর জনসংখ্যা বৃদ্ধি ও নগরায়নের ফলে কৃষি জমি কমে আসছে। উন্নত বীজ, সেচ ও প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে মাঠ ফসলের  উৎপাদন বেড়ে খাদ্য স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করলেও উদ্যান ফসল এর উৎপাদন বিশেষ করে ফল এর উৎপাদন এখনো কাংখিত পর্যায়ে পৌঁছেনি। কিন্তু এদেশে যে ফলগুলো উৎপাদিত হয় তার প্রায় ৬০ শতাংশ পাওয়া যায় জুন থেকে সেপ্টেম্বর এ চার মাসে। শীত মৌসুমে ফল প্রাপ্তির সুবিধা কম। কাজেই এ সময় ফল খাওয়ার সুযোগের অভাবে মানুষের বিশেষ করে গ্রামীণ মা  ও শিশুদের অপুষ্টি জনিত রোগ অহরহ দেখা যায়। বিকল্প খাদ্য হিসাবে ও সুষম খাবার গ্রহণে ফসলের অবদান অতুলনীয়। ফলের এসব গুরুত্বপূর্ণ দিকসহ বাড়তি খাদ্য উৎপাদনের পাশাপাশি জনগনের টেকসই পুষ্টি নিরাপত্তার জন্য বছরব্যাপী ফল উৎপাদনের মাধ্যমে পুষ্টি উন্নয়ন শীর্ষক প্রকল্পটি হাতে নিয়েছে সরকার।  এর অংশ হিসেবে শনিবার দুপুরে  কৃষিসম্প্রসারন অধিদপ্তর আয়োজিত মানিকগঞ্জের ঘিওরের তেরশ্রী ডিগ্রী কলেজ মিলনায়তনে এক উদ্ভূদ্ধকরন সভা অনুষ্ঠিত হয়।   কলেজের অধ্যক্ষ নরুল ইসলামের সভাপতিত্বে এসময় কৃষি সম্প্রসারন অধিপ্তরএর উপ-প্রকল্প পরিচালক একেএম মনিরুল ইসলাম,কৃষিবিদ নুরুল ইসলাম,,কৃষিবিদ সৈকত হোসেন, প্রভাষক অজয় কুমার ঘোষ,ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি আমিরুল ইসলাম,সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন মানিক,ডা:গাজীউল হক, রমজান মিয়াসহ এলাকার স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা শেষে ১২০পরিবারের মাঝে ১টি করে উন্নত জাতের নারিকেলের চারা  বিতরণ করা হয়।
(Visited 1 times, 1 visits today)

সম্পাদক ও প্রকাশক

কাজী জাহাঙ্গীর আলম সরকার।

ই-মেইল: jahangirbhaluka@gmail.com
নিউজ: bsomoy71@gmail.com

মোবাইল: ০১৭১৬৯০৭৯৮৪

%d bloggers like this: